সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ‘অঙ্কুর ২০১৯’ অনুষ্ঠিত

প্রতিবছর এমআইএসটি লিটারেচার অ্যান্ড কালচারাল ক্লাব এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে, যেখানে সারাদেশের অন্তত ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ২০টি কলেজ থেকে প্রায় এক হাজার ২০০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায়।

রাজধানীর মিরপুর সেনানিবাসে মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি প্রাঙ্গণে তৃতীয়বারের মতো আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ‘অঙ্কুর ২০১৯’ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, মেজর জেনারেল ওয়াহিদ-উজ-জামান, এনডিসি, এওডব্লিঊসি, পিএসসি, টিই। বিশেষ অতিথি ও বিচারক ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন হামিদুজ্জামান খান, নাট্য ও চলচ্চিত্র অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চু, তরুণ কথাসাহিত্যিক সাদাত হোসাইন, চলচ্চিত্র পরিচালক হাসিবুর রেজা কল্লোল, কার্টুনিস্ট মোরশেদ মিশু, অভিনেত্রী তমা মির্জা, চিত্রগ্রাহক রিফাত ইকবালসহ আরও অনেকেই।

আরও পড়ুন:
ইবিতে বঙ্গবন্ধু ফুটবল কাপ প্রতিযোগিতা শুরু
সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল দুর্নীতিতে নিমজ্জিত- মির্জা ফখরুল

প্রতিযোগিতায় নাচ, গান, অভিনয়কে কেন্দ্র করে রঙমেশালি, সাহিত্যকে কেন্দ্র করে গল্পপূরণ, কথোপকথন, বাংলা ও বিশ্বসাহিত্য অলিম্পিয়াড, চিত্রকথা, চিত্রকর্মকে কেন্দ্র করে তুলিকাব্য, ক্যানভাসে আঁকি, ফটোটেল কম্পিটিশন, ডিজিটাল আর্টওয়ার্ক কম্পিটিশনসহ মোট ১১টি সেগমেন্ট ছিল।

প্রতিবছরের মতো এ বছরও প্রতিযোগিতার স্মারক হিসেবে এমআইএসটি লিটারেচার অ্যান্ড কালচারাল ক্লাবের দল আনন্দলোক প্রকাশ করেছে ম্যাগাজিন ‘ওঙ্কার’। যেখানে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি দেশের বাইরের শিক্ষার্থীদের পাঠানো লেখা ছাপানো হয়েছে।

শনিবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠানটিতে বাঙালি সাহিত্য ও সংস্কৃতির এক নিদর্শন দেখা গেছে, যেখানে সারাদেশের চলচ্চিত্র এবং চিত্রকর্মের খ্যাতিমান ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এ প্রতিযোগিতার প্রাইজমানি দুই লাখ টাকা।

সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯ at ১৭:২৮:২৯ (GMT+06)
দেশদর্পণ/আহা/আক/কেএ