সাংবাদিকের ওপর দুর্বৃত্তদের হামলা, প্রতিবাদে মানববন্ধন

51
kustia

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার সিনিয়র সাংবাদিক এমএ রাজ্জাকের (৫২) ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

রোববার রাতে নিজ বাড়ির সামনে তিনি এই হামলার শিকার হন। দুর্বৃত্তরা তাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে। তাকে দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার দৌলতপুুর উপজেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক এমএ রাজ্জাক প্রতিদিনের মতো রোববার রাতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে যথারীতি নিজের ব্যবহৃত সিডিআই মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন।

তিনি রাত পৌনে ৯টার দিকে উপজেলা সদরের পার্শ্ববর্তী মানিকদিয়াড়ে নিজ বাড়ির গেটের সামনে পৌঁছে মোটরসাইকেলের গতি কমান। এ সময় সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা পেছন দিক থেকে এসে তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়।

একপর্যায়ে তিনি মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়েন। হামলাকারিরা সাংবাদিক রাজ্জাককে হাতুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।
আরও পড়ুন: ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুন: গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

তার চিৎকারে বাড়ির ভেতর থেকে স্ত্রী, পুত্র ও আশপাশের লোকজন বেরিয়ে এসে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক দৌলতপুর হাসপাতালে নেন। খবর পেয়ে তার সহকর্মীরা সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে ছুটে যান।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক নিগার সুলতানা জানান, হাতুড়ির আঘাতে তার মাথার পেছনে বাঁ পাশে অনেকখানি ডিপ হয়ে কেটে গেছে। সেখানে তিনটি সেলাই দেয়া হয়েছে। এছাড়া শরীরের পেছন দিকে তিনি মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন।

সাংবাদিক এমএ রাজ্জাক বলেন, ‘কারা কী কারণে আমার ওপর এভাবে হামলা করেছে তা ঠিক বুঝতে পারছি না।’ তিনি হামলাকারিদের চিনতে না পারলেও তারা ৪-৫জন ছিল বলে জানান। এ ঘটনার খবর পেয়ে দৌলতপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম রাতেই হাসপাতালে যান।

তিনি সাংবাদিক রাজ্জাকের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন এবং হামলাকারিদের খুঁজে বের করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

এদিকে সাংবাদিক রাজ্জাকের ওপর হামলার ঘটনায় এ উপজেলার সবস্তরের সাংবাদিকরা ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন।

প্রতিবাদে তারা সোমবার বেলা ১২টায় উপজেলা চত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন।

সাংবাদিকদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও অন্যান্য পেশাজীবীরা এ কর্মসূচিতে যোগ দেন। এ সময় বক্তারা অবিলম্বে হামলাকারিদের গ্রেপ্তার দাবি করেন।

দেশদর্পণ/এসআরএস/এসজে

Print Friendly, PDF & Email